১ĄDচীন
  2016-01-08 20:01:10  cri

আপনি জানেন কি, চীনকে চীনা ভাষায় কেনো 'চুং কুও' বলা হয়? 'চুং কুও' শব্দটির অর্থ 'মধ্যবর্তী দেশ'। এ নামটি কয়েক হাজার বছরের শাং রাজবংশের সময় দেয়া হয়। কারণ, শাং রাজবংশের রাজধানী যেখানে তার পূর্ব, পশ্চিম, উত্তর ও দক্ষিণ দিকে ছিল অন্যান্য অঞ্চল। তাই এর নাম দেয়া হয় 'চুং কুও'। বিংশ শতাব্দী থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে চীনকে 'চুং কুও' হিসেবে বলা শুরু হয়।

'চুং কুও'-এর আরেকটি প্রতিশব্দ আছে, সেটি হলো, 'হুয়া সিয়া'। 'হুয়া' মানে সুন্দর এবং 'সিয়া' মানে বিশাল। চীন ঠিক সুন্দর ও বিশাল একটি দেশ এবং এখানে পোশাক-পরিচ্ছদ, খাবার, বসবাস ও পর্যটনের জন্য সবকিছুই আছে।

পোশাক: চীনের ইতিহাস যেমন দীর্ঘ, তেমনি এর ভূমি বিস্তীর্ণ। এখানে যেমন রয়েছে হান ফু ও থাং চুয়াং-এর মতো ঐতিহ্যিক পোশাক তেমনি রয়েছে ৫৬টি জাতি ও তাদের নিজস্ব পোশাক। এসব পোশাক থেকে আপনি আপনার ইচ্ছামতো পোশাক বাছাই করতে পারেন। আর খুব আগ্রহী হলে আপনি সবগুলোই পরে দেখতে পারেন।

খাবার: চীনা খাবার বৈশিষ্ট্যময় ও জগত বিখ্যাত। মজার মজার সব খাবার রান্না করা ও তা পরিবেশন করা এখানকার ঐতিহ্যবাহী একটি সংস্কৃতি। আপনি চীনের রেস্টুরেন্টে ঐতিহ্যবাহী এসব খাবার পাবেন। টক, মিষ্টি, ঝাল বা তিতা সব স্বাদের খাবারই পাবেন বিশাল চীনে। এ ছাড়া, পাবেন উত্কৃষ্ট মানের চা। চীনা খাবারে এলাকাভিত্তিক ৮টি সম্প্রদায়ের বৈশিষ্ট্য রয়েছে। উত্তরাঞ্চলের খাবারে লবণ বেশি, দক্ষিণাঞ্চলের খাবারে মিষ্টি বেশি।

বসবাস: চীনে যেমন রয়েছে আধুনিক সুউচ্চ ভবন, তেমনি রয়েছে পেইচিংয়ের চতুর্ভূজাকার, সান সি প্রদেশের গুহাবাসী ও ফু চিয়ান প্রদেশের থুলোসহ বিভিন্ন ধরনের বাসাবাড়ি। বিভিন্ন ধরনের বসবাসের স্থান দেখে অনেক অভিজ্ঞতা হবে আপনার।

পর্যটন: চীনে আপনি অনেক জায়গায় ভ্রমণ করতে পারেন। বিশ্ব ঐতিহ্যের তালিকায় চীনের ৪৫টি স্থান রয়েছে। মহাপ্রাচীর, ছিন রাজবংশের টেরাকোটা, দুন হুয়াংসহ আরো অনেক কিছু। যেখানেই যাবেন সেখান থেকে আর ফিরতে মন চাইবে না। চীন আজ ছুটে চলছে উন্নতির দিকে। পেইচিং ও পশ্চিমা অপেরা হয় একই মঞ্চে। অলিম্পিক গেমস ও বিশ্বমেলা হয়েছে এখানে। বিশ্ব সংস্কৃতির মঞ্চও এই চীন। চীনারা আপনাকে স্বাগত জানায়।

© China Radio International.CRI. All Rights Reserved.
16A Shijingshan Road, Beijing, China. 100040